ইতিহাস গড়ার দ্বারপ্রান্তে পিএসজি

শুরু হচ্ছে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের সেমিফাইনালের মহারণ। ১ম বারের মত ফাইনালে উঠে ইতিহাস গড়ার সামনে দাঁড়িয়ে প্যারিস সেন্ট জার্মেই ও লিপজিগ। ২৫ বছর পর আসরের সেমিতে উঠেছে পিএসজি। জার্মান ক্লাবটির সমৃদ্ধ অতীত না থাকলেও তাদের হালকাভাবে নিচ্ছেন না কোচ টাচেল। আর ফরাসি জায়ান্টদের সমীহ করলেও, নিজেদের উজাড় করে দিতে প্রস্তুত লিপজিগ।

চ্যাম্পিয়ন্স লিগের সেমিফাইনালের জন্য প্রস্তুত পর্তুগাল। ১ম সেমিফাইনালের জন্য প্রস্তুত দুই ক্লাব প্যারিস সেন্ট জার্মেই ও লিপজিগ। চ্যাম্পিয়ন্স লিগ মানেই টানটান উত্তেজনা। রোমাঞ্চ আর চ্যালেঞ্জ নিতে নিজেকে উজাড় করে দেয়া। ১ম সেমিফাইনালের আগে সবার মনে হতেই পারে পিএসজির সঙ্গে লিপজিগের লড়াই। কেমন একপেশে হয়ে যাবে না?
মোটেও না। কারণ সেমিফাইনালে ওঠার পথে জার্মান ক্লাবটি হৃদয় ভেঙ্গেছে টটেনহ্যাম, অ্যাতলেটিকোর মত প্রতিপক্ষদের। এ ছাড়াও করোনায় বদলে দেয়া এ আসরে এখন পর্যন্ত বেশিরভাগ ফেবারিট ক্লাবেরই হয়েছে পতন। উল্টো আলো ছড়িয়েছে অপেক্ষাকৃত কম আলোচনায় থাকা ক্লাবগুলো। তাই লিপজিগের কাছে পিএসজি হেরে গেলেও অবাক হওয়ার কিছুই থাকবেনা।
পিএসজি প্রতিষ্ঠিত ১৯৭০ সালে। সে তুলনায় লিপজিগ ২০০৯। পিএসজির আছে ৯ বার লিগ ওয়ান জয়ের ইতিহাস। সে তুলনায় ২০১৬ সালে প্রথমবারের মত বুন্দেসলিগায় খেলার সুযোগ করে নেয় লিপজিগ। সে বারই লিগে রানার্সআপও হয় তারা। তাই প্রতিশ্রুতিশীল এই দলের বিপক্ষে পিএসজির লড়াইয়ের দিকে চোখ থাকবে পুরো ফুটবল দুনিয়ার।
কোয়ার্টার ফাইনালে আটালান্টার সঙ্গে ইনজুরিতে পড়ায় এ ম্যাচে খেলতে পারবেন না পিএসজির গোলপোস্টের নির্ভরতার প্রতীক কেইলর নাভাস। তার পরিবর্তে খেলবেন রিকো। দেখা যাবে না মিডফিল্ডার মার্কো ভেরাত্তিকে। নিষেধাজ্ঞা শেষে ফিরছেন ডি মারিয়া। এছাড়াও এমবাপ্পের ফেরার খবরে স্বস্তিতে পুরো দল।
পিএসজি কোচ থমাস টাচেল বলেন, ‘লিপজিগ শক্ত প্রতিপক্ষ। তবে, আমরা চাপমুক্ত থেকে খেলবো। আশা করছি এবার ফাইনাল নিশ্চিত করেই মাঠ ছাড়তে পারবো।’
অন্যদিকে, অ্যাতলেটিকোর সঙ্গে জয়ের একাদশ ধরে রেখেই খেলতে চান নেগেলসম্যান।
লিপজিগ কোচ নেগেলসম্যান বলেন, ‘পিএসজি অভিজ্ঞতায় আমাদের চেয়ে অনেক এগিয়ে আছে। আমরা শুধু ভাল খেলার দিকে ই মনোযোগ দিতে চাই। ফাইনালে উঠতে মুখিয়ে আছে পুরো দল।’
ম্যাচটা আরো একটা কারণে আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে। পিএসজি কোচ টাচেল যখন ২০০৭ সালে অগসবুর্গের কোচ। তখন তারই শীষ্য ছিলেন লিপগের বতৃমান কোচ নেগেলসম্যান। গুরু শীষ্যের সঙ্গে দুই জার্মানের কৌশলেরও লড়াইও ছড়াচ্ছে বাড়তি উত্তাপ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *