বাংলাদেশি প্রবাসীরা কাতারে ফেরার অনুমতি পেলেন, কিন্তু…

করোনায় স্বল্প ঝুঁকিপূর্ণ ৪০ দেশের তালিকায় বাংলাদেশের নাম না থাকলেও শর্তসাপেক্ষে ধীরে ধীরে দেশে ছুটিতে থাকা ১৪ হাজারের বেশি প্রবাসী ফিরতে পারবেন কাতারে। দেশটির সরকারের দেয়া এমন ঘোষণায় এক আগস্ট থেকে কাতার পোর্টাল ওয়েবসাইটের মাধ্যমে শুরু হয়েছে প্রবাসীদের আবেদনপত্র যাচাই-বাছাই।

এরইমধ্যে আবেদনপত্র গ্রহণ করে কাতারে ফিরে আসার অনুমতি দেওয়া হয়েছে অনেককে। তবে, ফিরে আসার অনুমতি দেয়া হলেও, কাতারের সঙ্গে বাংলাদেশের নিয়মিত ফ্লাইট বন্ধ থাকায় অনিশ্চয়তার মধ্যে রয়েছে কমিউনিটি ও দূতাবাস।
কাতারের করোনা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসায় ছুটিতে থাকা অভিবাসীদের ফেরার সুযোগ দিচ্ছে দেশটির সরকার। স্বল্প ঝুঁকিপূর্ণ ৪০ দেশের তালিকায় বাংলাদেশের নাম না থাকলেও শর্তসাপেক্ষে কাতারে ফিরে আসার প্রয়োজনীয়তা উল্লেখ করে অনলাইনে আবেদন করা প্রবাসীদের যাচাই বাছাই শেষে ফিরে করে আসার অনুমতি দেওয়া হচ্ছে অনেক কে। তবে, কাতারে ফেরার অনুমতি মিললেও, প্রবাসীরা যাতে দ্রুত আসতে পারে ও যারা এখনও অনুমতি পাননি, তারাও যাতে ফিরতে পারেন, সেজন্য দূতাবাসকে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেয়ার আহবান জানান প্রবাসী বাংলাদেশিরা।
কাতার প্রবাসীরা জানান, আমাদের প্রায় ১৪ হাজার প্রবাসী দেশে গিয়ে করোনাকালীনসময়ে আটকা পড়ে আছেন। এদের মধ্যে অনেকের ভিসা বাতিল হয়ে গেছে। সরকার যেনো দ্রুত পদক্ষেপ নিয়ে তাদের আসার ব্যবস্থা করে।
কাতারে ফিরে আসার জন্য অনুমতি পাওয়া প্রবাসীদেরকে ১ মাসের সময়সীমা বেধে দেয়া হলেও, নিয়মিত ফ্লাইট বন্ধ থাকায় প্রবাসীদের ফিরে আসা নিয়ে শঙ্কায় কমিউনিটির নেতারা।
কাতার বাংলাদেশি কমিউনিটি নেতা হাসিবুর রহমান জানান, বাংলাদেশ বিমান, কাতার এয়ারওয়েজ কেউই এখনো ফ্লাইট সিডিউল রেডি করেনি। এখনো সিদ্ধান্ত হয়নি কবে থেকে ফ্লাইট রেডি করতে পারবে।
এদিকে, অনুমতি পাওয়া প্রবাসীরা যাতে দ্রুত ফিরতে পারেন সে লক্ষ্যে বাংলাদেশ সিভিল অ্যাভিয়েশনকে কাতার সিভিল অ্যাভিয়েশনের সঙ্গে যোগাযোগ করে দ্রুত ফ্লাইট চালুর ব্যবস্থার অনুরোধ জানান দূতাবাসের কাউন্সিলর।
কাতার বাংলাদেশ দূতাবাস শ্রম কাউন্সিলর ড. মোহাম্মদ মুস্তাফিজুর রহমান জানান, বাংলাদেশের সিভিল এভিয়েশন অথরিটি যেনো কাতার সিভিল এভিয়েশন অথরিটির সঙ্গে কথা বলে দ্রুত ফ্লাইটের ব্যবস্থা করে।
তবে, দেশে থাকা প্রবাসীদের ছুটির মেয়াদ ছয় মাসের বেশি অতিবাহিত হয়ে থাকলে, কাতারের নিয়োগকৃত কোম্পানি থেকে রিটার্ন পারমিট অনুমতি পত্র লাগবে। সেইসঙ্গে, দেশ থেকে আসার ৪৮ ঘণ্টা আগে কাতার সরকারের তালিকভুক্ত ১৬টি মেডিকেলের যেকোন শাখা থেকে করোনা নেগেটিভ সাটিফিকেট নিয়ে আসতে হবে বলেও জানানো হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *