সাহেদ ও সাবরিনার মতো ভুয়া করোনা রিপোর্ট তৈরি ও বিক্রির অপরাধে কুমিল্লায় গ্রেফতার ১

কুমিল্লায় মহামারি করোনাভাইরাসের ভুয়া রিপোর্টসহ সকল ধরনের ভুয়া সার্টিফিকেট, জাতীয় পরিচয়পত্র ও সিলমোহর তৈরি করে প্রতারণার অপরাধে একজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

রোববার ২টায় জেলার চান্দিনা বাজারের বিসমিল্লাহ এন্টার প্রাইজ নামের একটি ব্যবসায় অভিযান চালিয়ে ওই প্রতারককে গ্রেফতার করে র‌্যাব-১১। এ সময় তার নিকট থেকে ভুয়া রিপোর্টসহ বিভিন্ন সনদ তৈরির সরঞ্জাম উদ্ধার করা হয়। বিকালে নগরীর শাকতলা এলাকায় র‌্যাব-১১ কার্যালয়ে এক প্রেস ব্রিফিংয়ে এসব তথ্য জানানো হয়।

র‌্যাব জানায়, জেলার চান্দিনা বাজারের ব্যবসায়ী মোরশেদ আলম দীর্ঘদিন ধরে কম্পিউটারে ফটোশপ ব্যবহার করে বিভিন্ন ধরনের সনদ তৈরি করে অর্থের বিনিময়ে সরবরাহ করে আসছিল। সম্প্রতি ল্যাব এইডের সনদ জাল করে করোনার ভুয়া রিপোর্ট প্রদান করছিল। গোপন সূত্রে এমন তথ্যের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে মোরশেদ আলমকে গ্রেফতার করা হয়। এ সময় তার নিকট থেকে প্রতারণার কাজে ব্যবহৃত একটি সিপিইউ, একটি মনিটর, একটি কালার প্রিন্টার, একটি কি-বোর্ড, একটি মাউস, একটি স্ক্যানার,
একটি ইন্টারনেট মডেম, তিনটি পেনড্রাইভ, দুইটি মোবাইল, ভুয়া করোনার সার্টিফিকেটসহ বিভিন্ন ধরনের জাল সার্টিফিকেট, ভুয়া জাতীয় পরিচয়পত্র ও প্রতারণার মাধ্যমে নেয়া নগদ অর্থ উদ্ধার করা হয়। গ্রেফতারকৃত মোরশেদ আলম জেলার দেবিদ্বার উপজেলার জাফরাবাদ গ্রামের ইদ্রিস আলীর ছেলে।

কুমিল্লা র‌্যাব-১১ এর কোম্পানি অধিনায়ক মেজর তালুকদার নাজমুস সাকিব জানান, গ্রেফতারকৃত মোরশেদ করোনাভাইরাসের ভুয়া সার্টিফিকেট প্রদানের নামে লোকজনের সাথে প্রতারণা করে আসছিল। এছাড়া ভুয়া সনদ তৈরি করে প্রতারণার মাধ্যমে লোকজনের নিকট থেকে বিপুল পরিমাণ অবৈধ অর্থ হাতিয়ে নেয়। এ ধরনের চক্রের বিরুদ্ধে র‌্যাবের অভিযান অব্যাহত থাকবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *