বিজিবিকে পেশাগত দক্ষতা অর্জনের নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর

প্রশিক্ষণের মাধ্যমে সীমান্তরক্ষী বাহিনী বিজিবিকে পেশাগত দক্ষতা অর্জন করতে হবে উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, প্রয়োজনে ডিজিটাল প্রযুক্তি ব্যবহারের উদ্যোগ নিতে হবে।

রোববার (৮ নভেম্বর) সকালে ভিডিও কনফারেন্সে বাহিনীটির এয়ার উইংয়ে নতুন দুটি হেলিকপ্টারের উদ্বোধন অনুষ্ঠানে এ কথা বলেন তিনি। পিলখানার হত্যাকাণ্ডের মতো ঘটনা যাতে আর না ঘটে, সেদিকে খেয়াল রাখতে বলেন শেখ হাসিনা।
২২৫ বছরের পুরনো সীমান্তরক্ষী বাহিনী বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ বা বিজিবি। সময়ের সঙ্গে সঙ্গে দেশের সীমান্তে চ্যালেঞ্জিং হয়েছে শান্তিশৃঙ্খলা রক্ষা। আধুনিক সরঞ্জামের সমন্বয়ে দুর্গম অঞ্চলেও এখন সদর্পে নজরদারি করছে এই আধাসামরিক বাহিনীটি।
সীমান্তের অতন্দ্র প্রহরী হিসেবে দেশের সার্বভৌমত্বের ফার্স্ট লাইন প্রহরী হিসেবে সম্প্রতি বিজিবিতে যোগ হয়েছে ১২টি আর্মাড পার্সোনেল ক্যারিয়ার-এপিসি, ১০টি রায়োট কন্ট্রোল ভেহিকল, ১২০টি এটিভিসহ অত্যাধুনিক পেট্রোলিং ভেহিকল।
আধুনিকায়নের ধারাবাহিকতায় এই বাহিনীতে যুক্ত হলো দুটি এমআই সেভেন্টি ওয়ান-ই মডেলের হেলিকপ্টার। এর মাধ্যমে বিজিবি পরিণত হলো ত্রিমাত্রিক বাহিনী হিসেবে। গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্স পিলখানায় যোগ দিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।
বিডিআর বিদ্রোহের ঘটনা অনাকাঙ্ক্ষিত উল্লেখ করে শেখ হাসিনা বলেন, এই বাহিনীর উন্নয়নে সার্বিক উদ্যোগ বাস্তবায়ন করছে সরকার।
তিনি বলেন, কিছু ঘটনা ঘটেছে যা অনাকাঙ্ক্ষিত। এমনটা আর হোক তা আমরা চাই না। এর ফলে দেশ এবং বাহিনী সবারই ক্ষতি হয়েছে।
প্রশিক্ষণের মাধ্যমে বিজিবির অপারেশনাল সক্ষমতা বাড়ানোর তাগিদ দিয়ে প্রধানমন্ত্রী জানান, ট্যাংকবিধ্বংসী মিসাইল কেনার প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে।
তিনি আরো বলেন, সব বাহিনীই ডিজিটাল পদ্ধতি ব্যবহার করবে। ম্যাপ করে যথাযথভাবে সীমান্তে প্রহরার ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে।
অনুষ্ঠানে সরকার প্রধানকে রাষ্ট্রীয় সালাম জানায় বিজিবির চৌকস দল।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *