ফরিদপুর শহর আওয়ামী লীগ সভাপতি গ্রেফতার, ২ হাজার কোটি টাকা পাচার।

ফরিদপুরের বহুল আলোচিত ২ হাজার কোটি টাকা মানি লন্ডারিং মামলায় রুবেল-বরকতের পরে এবার গ্রেফতার হলেন শহর আওয়ামী লীগের সভাপতি নাজমুল ইসলাম খন্দকার লেভী। আজ শুক্রবার দুপুরে নিজ বাড়ি থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ সিআইডি গত ২৬ জুন ২ হাজার কোটি টাকা অবৈধ অর্থ ও সম্পদ আয় ও পাচারের অভিযোগ এনে ঢাকার কাফরুল থানায় মামলাটি করেন। মামলাটির বাদি সিআইডির পরিদর্শক এস এম মিরাজ আল মাহমুদ।

এই মানি লন্ডারিং মামলায় ফরিদপুরের বহুল আলোচিত ২ ভাই শহর আওয়ামী লীগের বহিষ্কৃত সাধারণ সম্পাদক সাজ্জাদ হোসেন বরকত ও তার ভাই ইমতিয়াজ হাসান রুবেলের বিরুদ্ধে ২ হাজার কোটি টাকার সম্পদ অবৈধ উপায়ে উপার্জন ও পাচারের অভিযোগ আনা হয়। ২০১২ সালের মানি লন্ডারিং প্রতিরোধ আইন সংশোধনী ২০১৫ এর ৪(২) ধারায় এ মামলাটি দায়ের করা হয়।

গত ৭ জুন জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি সুবল সাহার বাড়িতে হামলা মালায় গ্রেফতার হন রুবেল ও বরকত। পরে তাদের মানি লন্ডারিং মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে প্রথমে ২ দিন পরে আরও ৩ দিনের রিমান্ড শুনানি শেষে ঢাকার মেট্রোপলিটান ম্যাজিস্ট্রেট আতিকুল ইসলাম ১৬৪ ধারায় ২ ভাইয়ের স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি নথিভুক্ত করেন। পরে তাদের কেরানিগঞ্জের কেন্দ্রীয় কারাগারের প্রেরণ করে।

ফরিদপুরের পুলিশ সুপার মো. আলিমুজ্জামান জানান, সিআইডি’র মানি লন্ডারিং মামলায় প্রধান আসামি রুবেল-বরকতের স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দিতে নাজমুল ইসলাম লেভীর সম্পৃক্ততার প্রেক্ষিতে শুক্রবার দুপুরে (সাড়ে ১২টা) ফরিদপুর শহরের চরকমলাপুর নিজবাড়ি থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। পরে আদালতের নির্দেশে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *