রায়হান হত্যাকান্ডের ঘটনার মোড় নিচ্ছে অন্যদিকে, গ্রীন বাংলা অভিনেতা মুরাদ নাকি আসল ভিলেন?

সিলেটে ডাক্তারের চেম্বার কর্মচারী রায়হানকে পরিকল্পিতভাবে পুলিশ দিয়ে হত্যা করানো হয়েছে। আর এ হত্যাকাণ্ডের নেপথ্যে নগরীর আখালিয়াস্থ নাটক নামে মদ ও যৌনতার আসর। সরেজমিন অনুসন্ধানে বেরিয়ে এসেছে হত্যাকাণ্ডের নেপথ্যে থাকা এ বিরল তথ্য।
অভিযোগে প্রকাশ, আখালিয়ায় রায়হানের বাড়ির অতি নিকটেই গ্রীণবাংলার নাট্যকার মুরাদের বাড়ি। নাটক ও অভিনয়ের নামে ওই এলাকার একটি বাড়িতে প্রায়ই জমতো মদ ও নারী নিয়ে অশ্লীল মধুচক্র। আসরটি পরিচালনা করতো মুরাদ ওরফে জিলাপি মুরাদ। কোমলদেহী জিলাপির স্বাদ নিতে আসরে প্রায়ই অংশ নিতেন সিলেটের বন্দর বাজার পুলিশ ফাড়ির ইনচার্জ তরুণ এসআই আকবর ভুইয়া। হাতে ওয়্যারলেস থাকায় পুলিশের তৎপরতার সকল বার্তা বেজে ওঠতো তার ওয়্যালেসে। তাই নিরাপদ ও নির্বিঘ্নে চলতো এই মধুচক্র।
যুবলীগ নেতা জগৎজ্যোতি হত্যা মামলারও আসামী এই মুরাদ।
মুরাদের নেতৃত্বে জমজমাট নারী মধুচক্রের প্রতিবদী ছিলেন প্রতিবেশী রায়হান। কিন্তু পুলিশের এসআই আকবর জড়িত থাকায় কিছুই করতে পারতেন না রায়হান ও এলাকার প্রতিবাদীরা। বিষয়টি নিয়ে উর্ধত্বন মহলে যাওয়ার চেষ্ঠায় ছিলেন রায়হান ও প্রতিবাদী লোকজন। এ খবর ফাস হয়ে গেলেই মুরাদ ও এসআই আকবর মিলে রায়হানকে ভুয়া ছিনতাইকারী সাজিয়ে পরিকল্পিতভাবে খুন করে বলে অভিযে প্রকাশ।

তথ্য সূত্রঃ সিলেট নিউজ ক্লাব

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *